রেশনের পরিবর্তে 170 টাকা ব্যাংকে, এটা করলে মাসে মাসে রেশন লাইনে দাঁড়ানোর ঝামেলা শেষ

সিদ্ধারামাইয়ার নেতৃত্বাধীন রেশন উপভোক্তাদের জন্য সম্পূর্ণ নতুন এক প্রকল্প চালু করা হল। ‘অন্ন ভাগ্য প্রকল্প’ নামক এই প্রকল্পের আওতাধীন সকলের অ্যাকাউন্টৈ 170 টাকা দেওয়া হবে‌। দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাসকারী সকল মানুষের জন্য অতিরিক্ত পাঁচ কেজি করে চাল কেনার জন্য এই টাকা দেওয়া হবে। পরিবারের মুখ্যব্যাক্তির আধার কার্ডের লিঙ্কযুক্ত ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে এই টাকা দেওয়া হবে‌। 

অন্ত্যোদয় প্রকল্পের আওতায় 1.28 কোটি উপকারভোগী

‘অন্ত্যোদয় অন্ন যোজনা’ অনুসারে রাজ্যের 1.28 কোটি মানুষ রেশনকার্ডের উপভোক্তা হওয়ার যোগ্য‌। এর মধ্যে 99 শতাংশ ক্ষেত্রে আধার নম্বরের সাথে মোবাইল নম্বরের লিংক করানো হয়েছে‌। প্রায় 1.06 কোটি (82 শতাংশ) সুবিধাভোগীদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টগুলির সঙ্গে আধার লিংক রয়েছে। এদের প্রতি কেজি 34 টাকা দামে অতিরিক্ত 5 কেজি চাল সরবরাহ করা হবে এবং এর জন্য ডিবিটি ব্যবহার করা হবে। এই টাকা পাওয়ার জন্য সুবিধাভোগীদের জন্য একটি করে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলার পরিকল্পনা করা হয়েছে। 

এই পেতে অবশ্যই যা করতে হবে 

এমন 22 লক্ষ BPL কার্ড হোল্ডার আছে, যারা ‘অন্নভাগ্য যোজনা প্রকল্প’-এর বাইরে। কারণ, তাঁদের রেশন কার্ডের সঙ্গে আঁধার লিংক থাকলেও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে আধার নম্বর লিংক করা নেই। এই কারণেই তারা এই যোজনার বাইরে রয়েছে। নির্বাচনী প্রচারের সময় উক্ত রাজ্য শাষিত দল BPL রেশন কার্ড হোল্ডার দের 5 কেজি করে চাল দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো। এখন সেই চালের পরিবর্তে প্রতিমাসে ১৭০ টাকা দেওয়ার বিনিময়ে, এই পরিকল্পনার বহিঃপ্রকাশ ঘটল। সুতরাং এটা স্পষ্ট যে, এই সুবিধা পেতে হলে ব্যাংক একাউন্টের সঙ্গে আধার কার্ড লিঙ্ক করতেই হবে।

‘অন্নভাগ্য যোজনা’ আসলে কি? 

কর্ণাটক সরকারের বিনামূল্যের চাল প্রদানের প্রকল্পটি ‘অন্নভাগ্য যোজনা’ নামে পরিচিত।(সম্পূর্ণ নিবন্ধটি পরার অনুরোধ করা হচ্ছে।) এই কর্মসূচির আওতায় সরকার আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া BPL ক্যাটাগরির মানুষদের প্রতিমাসে 10 কেজি করে চাল দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। 10 কেজি চালের মধ্যে 5 কেজি কেন্দ্রীয় এবং 5 কেজি রাজ্য সরকারের তরফ থেকে দেওয়া হবে।

বর্তমানে এর পরিবর্তে উপভোক্তাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে 170 টাকা জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সরকার বর্তমানে এফসিআই থেকে চাল কিনতে পারছে না। তাই রাজ্য সরকারের চালের ভাড়ারে টান পড়েছে। তাই এই পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত।

সবথেকে খুশির বিষয় হলো, পশ্চিমবঙ্গেও খুব শীঘ্রই এই পরিকল্পনা নেওয়ার কথা ভাবা হতে পারে। সেক্ষেত্রে প্রতি মাসে রেশন লাইনে দাঁড়ানোর ঝামেলার দিন শেষ হবে। তবে ঠিক কবে তা কার্যকরী হবে, সে-এখনো কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। 

1 thought on “রেশনের পরিবর্তে 170 টাকা ব্যাংকে, এটা করলে মাসে মাসে রেশন লাইনে দাঁড়ানোর ঝামেলা শেষ”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top

AdBlocker Detected!

https://mynewsmedia.co/wp-content/uploads/2023/01/AdBlock-Detected.png

Dear visitor, it seems that you are using an adblocker please take a moment to disable your AdBlocker it helps us pay our publishers and continue to provide free content for everyone.

Please note that the Brave browser is not supported on our website. We kindly request you to open our website using a different browser to ensure the best browsing experience.

Thank you for your understanding and cooperation.

Once, You're Done?